বিষণ্ণতায়

বিষণ্ণতায়

ছন্দবিহীন নীলচে স্মৃতির ধোঁয়ায় জমে মেলা…
যেন – নাট্যমঞ্চে কান্নাহাসির বর্ণ চুরির খেলা,
অভিমানের একাল-সেকাল, বাস্তুহারা অতীত…
শূন্যতাতে হৃদয় আকুল, নিঃস্ব এবং পতিত,
.
হঠাৎ ভাসে দমকা হাওয়া, প্রেমের খেয়াপারে…
ইচ্ছে বন্দি মনের অতল ডোবায় বারেবারে,
.
চুরি যাওয়া মন, হতাশ এখন, কালের শূন্যঘরে…
বেঁচে থাকার আকুলতায়, আবার বেঁচে মরে ;
উদাস চোখের জানালাতে, উদাস মনের কোনে…
সন্ধ্যারাতের আবছায়াতে ব্যর্থ তারা গোনে,
.
বিবর্ণ রঙ, কালের গরাদ, ব্যাকুল হাতের মুঠো…
সাদাকালোয় দিচ্ছে জানান, হৃদয় এখন ফুটো,
.
ঠোংগা কবির চোখের কোনে, একাকি রাত জাগা…
মন খারাপের ঝরা পাতায়, বিষণ্ণ রঙ লাগা।

কোটা তন্ত্র

কোটা তন্ত্র

ইচ্ছে গুলো হচ্ছে ফানুস,
মরছে মনের ভাবনা জগত,
মনের কায়া দুলছে ভীষণ,
মিথ্যে বরন হচ্ছে নগদ,
চোখের তারায় দোল দিয়েছে…
ঝিম ধরানো তালের মায়া,
জলের দরে কর নিয়েছে…
বহুকালের মৃত ছায়া,
ডুবছে, মরছে, ভাসছে আবার…
কালের গোপন সংগোপনে,
অবরোধের নিরেট ফাঁকি…
মিথ্যে কোটার লাল নিয়নে।
.
ঠোংগা কবি খুজছে দালাল,
উঠেছে রব সামাল সামাল।

আজন্ম পাপ

আজন্ম পাপ

কয়লার শত পাপ – রঙ কালো কয়লা…
কয়লার জঠরেতে হীরের জন্ম জানে-
উজ্জ্বল গাত্রের স্থান হবে সেই খানে…
যেখানে মুগ্ধ চোখ – নেই কোন ময়লা !
কয়লার শত পাপ – রঙ কালো কয়লা ,
.
হীরের হীরক ছটা – ঝলমলে পাত্রি…
কয়লার আঁধারের নাম লেখা ক্ষয়েতে-
কয়লা-আশঙ্কায় নুয়ে পড়া ভয়েতে…
জড়সড় হীরে তাই – আলোকের যাত্রী !
কয়লার বসবাস – মিশকালো রাত্রি ;
.
কয়লা তবুও ভাঙ্গে – নিঃশেষে জ্বালানী…
হীরের জন্মদায়ি, যে হীরে অমলিন-
অমরত্বের হীরে সুশোভিত দ্বিধাহীন…
তারপরও মাঝেমাঝে ভয়ে আসে ঢুলুনি !
কারন অতীত তার কয়লার কলোনি ;
.
কয়লার শত পাপ – রঙ কালো কয়লা,
তবুও হীরের মা – গর্বিত লায়লা,
ঠোংগার মনে আশা – কয়লাই হওয়া চাই,
হীরের জন্ম যেথা – যে হীরের ক্ষয় নাই।

অযথাই

তারপর একদিন, হতাশায় উত্তাল নবান্নে
হলুদ কাব্য গাঁথা এলোমেলো পংতি…
তারপর একদিন, প্রভাত নিখোঁজের অরন্যে…
আলো খোঁজে পর্দায় জীবনের ভাংতি;
তমার সিঁথির লালে পবিত্র হোম জ্বলে…
কপোলেতে আঁকা— মধ্যমায় বিন্দু;
তমার নোলক দোলে উত্তরীয় বাঁকা ছলে-
অধরেতে বাঁকা— সর্বগ্রাসী সিন্ধু…
.
তারপর একদিন, মেঘের কুঁচির ভাঁজে নৃত্য
জড়সড় বাতাসের সরসর মাদলে…
তারপর একদিন, লালিমায় ঝাপসা আঁকা বৃত্ত
প্রদীপ পাদ্য হাতে হোমানল আদলে;
তমার দৃষ্টিভালে কাজলের টানা টানা ধনুকে…
ক্ষয় মন, ক্ষয় বুকে উন্মাদ টঙ্কার-
তমার প্রেম যেন পরাগ মুক্তো গুড়ো ঝিনুকে
ক্ষয় হয়, ক্ষয় সাঝে রক্ত গন্ধমাখা হুঙ্কার…
.
তারপর একদিন, লুণ্ঠন নিশীথের নিষাদে…
মিলায় জয়রথ, কাঁকনের শিহরণ-
তারপর একদিন, আরশির ভাঙা মুখ বিষাদে…
হারায় স্বপ্ন-গাথা, পিছু ডাকা আহরণ ।
.
ঠোংগার ভুলে যাওয়া দেবী মুখ দর্শন…
খামোখাই স্মৃতি মাখা হৃদয়ের কর্ষণ…