কথোপকথন ৩

পত্র-৩

— ফারহানা জিলানী এবং ঠোংগা কবি
.
তমাঃ-
কফির কাপে লম্বা চুমুক
তোমার খাতায় উঁকি…
কি লিখেছো আমায় নিয়ে?
নতুন কাব্য নাকি!
তুমি আমার হাজার গোলাপ
ছোট্ট ছাঁদের কোণে…
তোমার চোখেই খুঁজব আমি
স্বপ্ন দেখার মানে,
রাত পোহানোর নিরবতার গল্প বলার ছাঁদে…
মনটা ভীষণ খারাপ হলে তোর সাথে কে কাঁদে?
.
তমঃ-
আমার ভীষণ একলা লাগে,
রাত্রি এ মন একলা জাগে…
মন খারাপের ছাঁদে…
চাতক প্রনয় ফাঁদে,
তোমায় নিয়ে কাব্য লিখে হাজার গোলাপ বুকে,
শিশির মাখা প্রনয় শেখা, চন্দ্র বিলাপ মেখে…
ডাহুক নয়ন, তুমি আঁকা স্বপ্ন দেখার খাতে…
তোমার চোখেই প্রথম প্রনয় মাতাল হাওয়ার রাতে।

কথোপকথন ২

পত্র-২

— ঠোংগা কবি এবং ফারহানা জিলানী
.
তমঃ-
তোমার নয়ন সিক্ত ভেজা গানে…
ব্যাকুলতার নূপুরে সুর তোলে,
ভালোবাসার সাজিয়ে রাখা থানে…
প্রেমের লহর, কাজল প্রনয় জলে,
তোমার আঁখি–
সিক্ত সহজ দাবি…
স্বপ্নে হারায়–
স্বপ্ন-লোকের চাবি।
.
তমাঃ-
কান্না নয় গো, জল-তরঙ্গের গান,
বৃষ্টি ভেজা লাজুক অভিমান,
পথ হারিয়ে পথের ঠিকানায়…
স্নিগ্ধ পরশ, মিষ্টি ছলনায়,
মেঘবালিকা যতই কাঁদুক–
হারিয়ে নাকছাবি,
খুঁজে তুমি আনবে ঠিকই–
স্বপ্ন-লোকের চাবি।

কথোপকথন

পত্র-১

— ফারহানা জিলানী এবং ঠোংগা কবি..
.
তমাঃ-
এখন আমি তেমনই আছি,
যেমন ছিলাম আগে আমি…
খামখেয়ালীর তালপাখাটা-
বাতাস করে মধু মাখা,
ক্যালেন্ডার এর সবটা জুড়ে-
তোমার কথাই ঘুরে ফিরে…
নামটি তোমার অষ্ট-প্রহর কেবল বাজে মনের কানে,
প্রথম ছোঁয়ার সুখ-স্মৃতিটা ভাসতে বলে প্রেমের বানে…
বিশ বছরের স্মৃতির খাতায়-
তোমার কথাই পাতায় পাতায়,
লিখেছি খুব যত্ন কোরে…
ভুলে যাব কেমন কোরে?!
.
তমঃ-
তবুও কেন মন মানে না…
অষ্ট-প্রহর তোমায় জুড়ে …
কষ্ট এখন দিক জানে না …
যাচ্ছে বুকে হৃদয় পুড়ে …
বিশ বছরের অজানাতে …
কতই নষ্ট স্পষ্ট করে …
ভালবাসার খাজানাতে…
দিচ্ছি প্রেম এই বাক্স ভরে …
গ্রহন করো, গ্রহন করো …
নতুন করে পুরোন নামে…
আবার বেঁচে, আবার মর …
ভাব মেলানো নীলচে খামে।