কথোপকথন ৭

পত্র-৭

— ফারহানা জিলানী এবং ঠোংগা কবি
.
তমাঃ-
ঘুমের ঘোরে হাসির শব্দ পেলাম…
এসেছিলে নাকি?
নাকি সবই ছিল মিথ্যে স্বপন…
সবই ছিল ফাকি!
কাছে তোমায় পাইনা, শুধু স্বপ্নে চেয়ে থাকি,
ধরার মাঝে অধরা তুমি-
কাজলে তোমায় আঁকি…
এসেছিলে নাকি??
.
তমঃ-
আলতো ছোঁয়ায় তোমার ঘুমে…
এসেছিলেম তোমার মনে…
ভালোবাসার ক্ষনে;
ছায়া হয়েই কাছে আছি,
অধরাতেই প্রেমের মাঝি…
তোমার কাজল মায়ার ফাঁকি…
কাজল চোখের তূনে…
প্রেমের কাহন গুণে।

কথোপকথন ৬

পত্র-৬

— ঠোংগা কবি এবং ফারহানা জিলানী
.
তমঃ-
কার কথা ভাবো আনমনে?
প্রেম আল্পনায় হারাও নিজেকে…
শুকোনো অশ্রু-ছাপ ডায়েরির কোনে,
এখনো বসন্তের কুহক যায় ডেকে…
প্রণয়ের ভারে…
চেয়েছিলে যারে,
হৃদয়ের মোড়ে-
পেয়েছিলে তারে?
আমারে??
.
তমাঃ-
যার মাঝে হারিয়ে প্রনয়ে…
কুহক ডাকে ভুলেছি নিশিদিন…
গিয়েছি বসন্ত কথা ভুলে…
হোক তা ভুল,
কি হবে এতো হিসেব করে?
আমি তো পেয়েছি তারে…
অমাবস্যার ঘোরে!
বৃস্টিস্নাত ভোরে…
কুয়াশার চাদরে…
তোমারে!

কথোপকথন ৫

পত্র-৫

— ফারহানা জিলানী এবং ঠোংগা কবি
.
তমাঃ-
কুয়াশার চাদরে মোড়া, এ কেমন শহর…
নরম নেশায় ভরা কামুক অধর,
জীবন কঠিন কেন তোমাতে আমাতে,
জটিল অংক যেন পারিনা মেলাতে…
সব পাখি নীড়ে ফেরে গোধুলী মায়ায়…
আমিই কেবল বাকি, মিশেছি কায়ায়…
চোখ ভরা জল আর টোল পরা হাসি…
মনে পড়ে আজো সেই ভালোবাসাবাসি।
.
তমঃ-
জীবনের ঋণ শোধ তমাতে, তোমাতে…
প্রনয়ে এখনো তুমি নিখোঁজ আমাতে,
কায়ার ছায়াতে কেন খোঁজো না আমায়-
কেন প্রেম কান্নার বৃষ্টি নামায়?
ক্ষয়ে যায় বিবর্ণ ফুলের বহর…
যেন, কুয়াশায় ঢাকা নদী মলিন লহর…
প্রকৃতি সবুজে তোমারই মায়ায়…
ছায়া হয়ে মিশে আছি তোমার ছায়ায়,
গাল ভরা অভিমান, কাঁচ ভাঙ্গা হাসি…
মনে আছো আজো তোমাকেই ভালোবাসি।

কথোপকথন ৪

পত্র-৪

— ঠোংগা কবি এবং ফারহানা জিলানী
.
তমঃ-
ব্যাকুল তোমার ব্যাকুলতায় আমি….
বিরহে নীল অন্ধকারে নামি,
তমায় আঁকা তোমার ছবি….
তুলির ছোঁয়ায় রঙিন সবই….
তম-তুলির স্পর্শে আকুল তমাতে লাল কামিনী,
তোমার ছবির স্বপ্ন-তুলির বিরহ নীল যামিনী…
.
তমাঃ-
তোমার স্পর্শে অন্ধ আমি, রঙিন নেশায় উড়ি…
তোমার বুকের উষ্ণ ছোয়ায় বেঁচে আবার মরি,
তোমার তুলি আকুল কেন…
আঁকতে আমার ছবি?
নাকি তুলির ছোয়ায় স্পর্শ পাবে…
শিল্পী থেকে কবি!