কুহেলী কুহক

কুহেলী কুহক

অতৃপ্তি যাতনায় আঁধারের বন্দিনী মরীচিকা অবয়ব,
সময়ের নির্জনে মায়ার অপরাজিতা প্রাণময় সুন্দর,
কান্নার আলোকে মুক্তির হাহাকারে কুহকের উৎসব,
আকাশের চাদরের প্রান্তে ক্ষয়ে যাওয়া একাদশী চন্দর।
দৃষ্টির বিভ্রমে কুহকিনী নিশীথের অজানা অনন্ত..
জন্মান্তরে ক্ষীণ জন্মের তৃষ্ণায় প্রণয়ের মন্তর,
প্রহেলিকা জমাটের আলোকিত অসীমে স্বপ্নেরা ক্লান্ত,
অভিমান তুহিনে ভালোবাসা উষ্ণতা হারিয়েছে গন্তর।

তারকার গভীরে হেঁয়ালির খেয়ালে সৃষ্টির স্পন্দন..
মৃত্যুর জোছনার ঠিকানায় মায়াজাল প্রলয়ের বন্দর,
নির্বাক আঁধারে প্রেতযোনি তৃষ্ণার পৃথিবীর বন্ধন,
বিমূর্ত এলোমেলো ভাবনার দুর্গম হিমগিরি কন্দর।
আঁধারের তন্দ্রায় জোনাকির ক্ষণজীবী আলোক প্রসাদ,
জীবনের সীমানায় ছায়াময় গহীনে ছায়াদের অন্তর,
পিপাসার অচেনায় ছায়াময় মানবীর প্রচণ্ড অবসাদ,
রাত্রির শরীরে বিষণ্ণ আলোকের কুহেলিকা প্রান্তর।

রক্ত-গোলাপ

রক্ত-গোলাপ

নয়নের মাপা আহবানে রঙিন কাঁচ ভাঙা হাসি,
দুরন্ত প্রেমময় অভিনয়ে ভালে কপটতা রাশি রাশি,
হৃদয়ের লালে রঞ্জিত গোলাপের কাঁটা,
বর্ণিল মোহে উত্তাল বুনো অজানায় হাঁটা,
রঙিন প্রেমের সুখ শৌখিন হাড়িকাঠে শান্তির ফাঁসি,
প্রতারণা তুলিতে গোলাপ লাল ক্যানভাসে আঁকা শশী।
রক্তে ঝরা রঙধনু বৃষ্টির প্রজাপতি ললনা,
মাংসের আবেদনে উর্বশী ষোলকলা ছলনা,
রক্ত গোলাপের গান প্রেমের সুরের সম্মোহনী বাঁশি,
কাঁটাময় গোলাপের তৃষ্ণার যৌবন লাল প্রেম-নিশি।
গোলাপের লাল রঙে কামনারা অন্ধ,
তাই, প্রেয়সীর সৌরভে শরীরের গন্ধ,
গোলাপের লোহিতে নিশীথের শঠতায় চরণের দাসী,
মনোহর ছলনার প্রেমময় লালে, গোলাপ সর্বনাশী।

গর্জন

গর্জন

রাত্রির দেয়ালে আঁধারের খেয়ালের নীরবতা মাখা,
গাঢ় কালো আকাশে এলোমেলো বাতাসের স্পন্দন,
বেপরোয়া স্বপ্নের পালকির অজানায় স্মৃতিদের বন্ধন,
হৃদয়ের কাটাকুটি ছলনায় প্রথম প্রণয় শেখা,
নির্জন ব্যথাদের আয়োজনে পিছু ফিরে দেখা।
সমুদ্র মিছিলে বেহিসাবি নাবিকের হারানো দু-কূল,
মনের আল্পনায় আঁখি জল কাজলে দুপুরের ভুল,
যেমন, হারায় কালের নুড়ি, প্রেয়সীর দুল…
হৃদয়ের ঝড়ের গর্জন নির্মিত পাথরের ফুল।

সময়ের বাহুমূলে আঁধার মন্ত্রপূত রাত্রির তাগা,
আগমনী জীবনের দৃঢ় পদচারণে মৃত্যুর বর্জন,
আলোকের ঢেউয়ের নীহারিকা ডানায় সময়ের গর্জন,
আমৃত্যু অজানার ঘুম ঘুম ঝাপসা জাগরণে জাগা,
আকণ্ঠ পরাজয় পিপাসার শোক আবেশের ঘোর লাগা।
অভিমান ডানাতে ফেলে আসা অতীতে প্রেমের অতুল,
ধুলো জমা ডায়েরিতে রাত্রির কবিতার প্রাণের প্রতুল,
ভেঙে যাওয়া খেলাঘর এবং হৃদয়ের খেলার পুতুল,
স্মৃতিময় জাগরণে পাঁজরের গর্জনে রক্ত রাতুল।

পথভুলো

পথভুলো

তারপর একদিন ভুলে যাওয়া নদীর প্রহেলিকা ঘাট,
কুয়াশার ঝাপসায় বিস্মৃতির ঝড় তোলা স্বপ্ন আমল,
পথভুল ঘাসে ছাওয়া রূপকথা প্রণয়ের রাজ্যের পাট,
হেমন্ত ভুলে যাওয়া সাদাকালো বিবর্ণ হৃদয় কমল।
সোহাগের আঁচলের রেশমের কোমলতা আজ বহুদুর,
মুগ্ধতা নিয়ে গেছে এলোমেলো সময়ের ঘোটকের খুর,
তুমি যেন উত্তাল রাত্রির দহনের শীতল অনল,
তারপরও ভুল করে প্রায়শই, স্বর্ণালী ফসলের সুর।